ইনপুট ও আউটপুট (Input & Output)

Computer অনেক জটিল ভাবে কাজ করলেও আমরা একটু সহজে বুঝার চেষ্টা করি যে Computer আসলে কিভাবে কাজ করে। নিচের ছবিটার দিকে লক্ষ করিঃ

Input-Process-Output

Computer এর কাজ করার প্রক্রিয়া সহজে বুঝাতে গেলে বলতে হয় যে Computer প্রথমে কোন Data Input নেয় এরপর তা Process করে এবং সব শেষে তা Output করে দেয়। এখন আমরা যেহেতু Computer এর জন্য Program লিখবো তাই আমাদের বিভিন্ন Data Input নিয়ে আমাদের Program এর মাধ্যমে তা Process করতে হবে এরপর তা Output করে User কে জানিয়েও দিতে হবে। তাই আমরা এখন C Program এ Input নেওয়া ও Output দেওয়া শিখবো।

Input নেওয়াঃ C তে Input নেওয়ার জন্য scanf বা Scan Formatted নামের একটি Function ব্যবহার করতে হয়। এটি কিভাবে কাজ করে তা stdio.h নামের File এ লিখা আছে তাই আমরা যখনই Input নিয়ে কোন কাজ করবো তখন আমরা Program এর শুরুতে #include <stdio.h> লিখে File টি আমাদের Program এ Include করে দিবো। এখন scanf এর Basic Syntax টা দেখে নেইঃ

scanf(“format_specifier”, &variable_name);

Format Specifier দিয়ে আমরা কি Type এর Data Input নিবো তা বলে দেই। C তে বিভিন্ন Data Type এর জন্য আলাদা আলাদা Format Specifier ব্যবহার করতে হয়। Variable Name দিয়ে আমরা আমাদের Input টা কোন Variable এ Store করবো তা বলে দেই। Variable Name এর আগে সব সময় & (Ampersand) দিতে হয় যা ঐ Variable টির Address নির্দেশ করে। এটি বুঝতে হলে Pointer সম্পর্কে ধারণা নিতে হবে। আমরা একি scanf দিয়ে একাধিক Variable এও Input নিতে পারবো। তখন যতগুলো Variable, Double Quotation (“”) এর ভিতর ততগুলো Format Specifier লিখতে হবে এবং Variable এর নাম গুলো পাশাপাশি কমা দিয়ে লিখতে হবে। নিচে বিভিন্ন Data Type এর জন্য বিভিন্ন Format Specifier এর একটা Table দিলাম।

Table: Format Specifiers

Table: Format Specifiers

Example:

#include <stdio.h>

int main(){
    int a;
    float b;
    char c;
    scanf(“%d %f %c”, &a, &b, &c);
    printf(“%d %f %c”, a, b, c);
    return 0;
}

Output দেওয়াঃ ওপরের Program টিতেই আমরা Output দেখিয়েছি। Output দেখানোর জন্য printf বা Print Formatted Function টি ব্যবহার করেছি। এটিও stdio.h এরই একটি Function। এটির Syntax অনেকটা scanf এর মতই পার্থক্য শুধু এক জায়গায়ই যে এখানে Variable এর নাম এর আগে & (Ampersand) হবে না। কারণ scanf এ আমরা & দিয়ে আমাদের Input টি কোন Variable এ রাখতে হবে তার Address নির্দেশ করেছিলাম। কিন্তু এখানে আমরা Variable এর Address না বরং Value Output করবো তাই & হবে না।

C তে আমরা Format Specifier কে Modify করে আমাদের Output কে Format করতে পারবো। নিচে একটি Table দেওয়া হলঃ

Table: Modifying Format Specifiers

Table: Modifying Format Specifiers

নিচে বিভিন্ন ভাবে Print করার একটা Program দিলাম Example হিসেবেঃ

#include <stdio.h>

int main(){
   int a = 10, b = 15;
   float c = 51.6597;
   printf(“%10d %10d\n”, a, b);
   printf(“%-10d %d\n”, a, b);
   printf(“%10.2f\n”, c);
   return 0;
}

এখানে আমরা printf এর ভিতর \n ব্যবহার করেছি। ভাবছো এটা আবার কোন চিড়িয়া? এটাকে বলা হয় New Line Character। এটার কাজ হল একটি নতুন Line Print করা তাই Program টি Run করলে দেখতে পাবে যে Output তিনটি আলাদা Line এ আসছে। \n কে BackSlash Character বলা হয়। C তে এমন আরো কিছু Character আছে।

Table: Backslash Characters

Table: Backslash Characters

আমি যেসব Example দিব সেগুলো Run করে দেখতে হবে এবং শুধু তাই নয় নিজে নিজে Experiment ও করতে হবে। অর্থাৎ Program এ বিভিন্ন জায়গায় পরিবর্তন করে দেখতে হবে যে Output এ কি কি পরিবর্তন হল।

Advertisements
Tagged with: , , , , , , ,
Posted in বেসিক প্রোগ্রামিং

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s

%d bloggers like this: